টেক নিউজচাকরি না হওয়ার ৩টি কারণ

চাকরি না হওয়ার ৩টি কারণ

চাকরি না হওয়ার জন্য ৩টি কারণ রয়েছে। কেন আপনি চাকরি পাচ্ছেন না, এবং কি করলে আপনি চাকরি পাবেন, এই বিষয় নিয়ে আজকের এই আর্টিকেলটি লিখব। আপনি যদি চাকরি পাওয়ার জন্য আগ্রহী হয়ে থাকেন, তাহলে যে ৩টি কারণে আপনি চাকরি পাচ্ছেন না সে ৩টি কারণ জেনে নেওয়া আপনার জন্য জরুরী।

জেনে নেওয়া যাক চাকরি না হওয়ার ৩টি কারণ

কেন আপনার চাকরি হচ্ছে না তার কারণ জেনে নেওয়ার পাশাপাশি আপনাকে এই ৩টি দক্ষতা অবশ্যই উন্নত করতে হবে। কারণ জেনে নিলেন এরপরে এগুলোর সমাধান করাটা হচ্ছে আপনার দায়িত্ব। তবে এমনটা নয় যে শুধুমাত্র কেন চাকরি হচ্ছে না তা জানলেন। এরপরে আপনি আফসোস করবেন আর বসে থাকবেন।

যদি আপনি একটু সময় দিয়ে এই ৩টি দক্ষতা অর্জন করতে পারেন, তাহলে প্রতিটি চাকরিতে আপনি অন্যান্যদের থেকে প্রাধান্য পাবেন। এবং আপনার চাকরি হওয়ার সম্ভাবনা অন্যান্য প্রার্থীদের থেকে বেশি থাকবে।

১. বেসিক কম্পিউটার স্কিল না থাকা

বর্তমান সময়ের শতকরা ৯৮% চাকরি প্রার্থীরা কম্পিউটার বিষয়ে দক্ষ না। স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পেলেও কম্পিউটার ব্যবহারের ক্ষেত্রে বর্তমানে অনীহা রয়েছে বেশি। অথচ আপনি যদি একটু দেখেন, তাহলে একটা কম্পিউটারের ক্রয় মূল্য একটা স্মার্টফোনের চেয়ে অনেক কম।

এরপরেও বাংলাদেশের অধিকাংশ চাকরির প্রার্থীরা কম্পিউটার স্কিল অর্জন করতে পারে না। এর মূল কারণ হচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষা থেকে আমাদেরকে কম্পিউটার স্কিলে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়নি। যদিও বর্তমান সময়ে আইসিটি বিষয় বাধ্যতামূলক করার মাধ্যমে ধীরে ধীরে কম্পিউটারের দক্ষতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বেসিক কম্পিউটার দক্ষতা
বেসিক কম্পিউটার দক্ষতা

চাকরি না হওয়ার প্রধান যে কারণ সেটি হচ্ছে কম্পিউটারের দক্ষতা। প্রতিটি অফিস আদালতের ক্ষেত্রে কম্পিউটারের কাজ বাধ্যতামূলক রয়েছে। কারণ বর্তমান সময়ের সব কিছু ডিজিটাল পদ্ধতিতে রক্ষণাবেক্ষণ করা হচ্ছে।

মনে হতে পারে কম্পিউটারের দক্ষতা খুবই জটিল কিন্তু কম্পিউটার শিখাটা খুব সহজ একটি বিষয়। কম্পিউটার শিখাটা সহজ করার জন্য আপনি যেকোনো একটি আইটি প্রতিষ্ঠানে গিয়ে কম্পিউটারের বেসিক কোর্স করতে পারেন।

বর্তমানে ইউটিউব এবং গুগল এর মধ্যেও সম্পূর্ণ ফ্রিতে বেসিক কম্পিউটার কোর্স পাওয়া যায়।

কিছু টাকা খরচ করে যদি আপনি কোন একটা আইটি প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটারের বেসিক কোর্সটা করতে পারেন, তাহলে আপনি একটি কোর্স করার পাশাপাশি সার্টিফিকেট ও পেয়ে যাবেন।

এমনকি চাইলে আপনি অনলাইনেও কোর্স করে সার্টিফিকেট অর্জন করতে পারেন।

তবে হাতে-কলমে স্বীকার জন্য একটি আইটি প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার কোর্স করাটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে। সব সময় একটি ভাল ও স্বনামধন্য আইটি প্রতিষ্ঠান থেকে কম্পিউটার কোর্স টি সম্পন্ন করার চেষ্টা করুন।

২. শুদ্ধভাবে বাংলা ভাষায় কথা বলতে না পারা

একুশে ফেব্রুয়ারিতে বাংলা ভাষার শুদ্ধতা যাচাই করার জন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ক্যাম্পেইন করে থাকেন। সে বাংলাচর্চা ক্যাম্পেইনগুলো থেকে আমরা বিভিন্ন হাস্যকর তথ্য দেখতে পাই। অধিকাংশই বাংলা ভাষায় শুদ্ধ করে কথা বলতে পারে না।

তাই আপনাকে বাংলা ভাষায় শুদ্ধ করে কথা বলার চর্চা করতে হবে। কিভাবে বাংলা ভাষায় শুদ্ধ করে কথা বলতে হয়, সে চর্চা করার জন্য বাংলা ব্যাকরণ গুলো অনুসরণ করতে হবে।

আমাদের জন্য বাংলা ব্যাকরণ অনুসরণ করে শুদ্ধ ভাষায় কথা বলাটা জটিল হলেও যেহেতু বাংলা আমাদের মাতৃভাষা তাই আমরা খুব সহজেই এটাকে আয়ত্ত করতে পারি।

শুদ্ধ করে বাংলা ভাষায় কথা বলতে পারলেই কথার সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়। ফলে যে কোন কোম্পানিতে আপনি যখন ইন্টারভিউ দিতে যাবেন, তখন আপনার কথার সৌন্দর্য দেখেই তারা মুগ্ধ হবেন।

শুদ্ধ বাংলা ভাষায় কথা বলা
শুদ্ধ বাংলা ভাষায় কথা বলা

কথার সৌন্দর্য চারিত্রিক মাধুর্য। তাই আপনি যদি সুন্দর করে কথা বলতে পারেন, তাহলে যে কাউকে আপনি ইমপ্রেস করতে পারবেন। ফলে আপনি খুব দ্রুত মানুষের মন জয় করার পাশাপাশি যে কোন কোম্পানিতে চাকরি ও জয়ী হতে পারবেন।

চাকরি পাওয়ার জন্য এটি অসাধারণ একটি কৌশল। যেটি আপনি ব্যবহার করে যে কোন কোম্পানিতেই চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

সঠিক জবের সন্ধান করতে না পারা

আপনি ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশোনা করেছেন কিন্তু ব্যাংকে চাকরি করতে চান। তাহলে বলুন যারা ব্যাংককে চাকরি করার জন্য ছোটবেলা থেকে পড়াশোনা করে ডিগ্রী অর্জন করেছে। এত কষ্টের মাধ্যমে অর্জিত ডিগ্রি নিয়ে তারা কোথায় চাকরি করবে। তারা কি ইঞ্জিনিয়ারিং প্রফেশনে চাকরি করবে!

এজন্য আমাদেরকে সঠিক প্রফেশনে চাকরি খুঁজতে হবে। তাহলে আমরা আমাদের জন্য উপযুক্ত চাকরির সন্ধান পাব। সব সময় আপনার পছন্দের চাকরির সন্ধান পাওয়ার জন্য আপনি বিভিন্ন চাকরির ওয়েব সাইটে রেজিস্ট্রেশন করে সাবস্ক্রাইব করে রাখতে পারেন।

বর্তমান সময়ের LinkedIn হচ্ছে জনপ্রিয় একটি জনপ্রিয় চাকরি পাওয়ার কমিউনিটি। LinkedIn মধ্যে প্রতিদিন নতুন নতুন চাকরির সার্কুলার প্রকাশিত হয় এবং কোম্পানিগুলো সরাসরি LinkedIn থেকেই আপনাকে হায়ার করতে পারে।

এটি চাকরি পাওয়ার জন্য আরও অসাধারণ একটি পদ্ধতি। যেটি আপনি অনুসরণ করলে আপনার ক্যারিয়ারের জন্য উপযুক্ত চাকরির সন্ধান পাবেন। আমি ব্যক্তিগতভাবে লিংকডিং প্রোফাইলটাকে উন্নত করার জন্য আপনাকে পরামর্শ দেবো। যেন আপনি এখান থেকে একাধিক চাকরির নোটিফিকেশন পেতে থাকেন।

LinkedIn profile এর মাধ্যমে আপনি আপনার পছন্দের কোম্পানিগুলোকে অনুসরণ করতে পারেন। যেন তাদের সার্কুলার প্রকাশিত হলে আপনি একটি নোটিফিকেশন পেয়ে যান।

চাকরি যেভাবে পাবেন:

সম্মানিত চাকরি প্রার্থীরা আমাদের এই আর্টিকেলটিতে আপনাদের সাথে যে ৩টি চাকরি না পাওয়ার কারণ শেয়ার করা হয়েছে। সে ৩টি কারণ যদি আপনারা শুধরে নিতে পারেন, তাহলে চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি রয়েছে। তাই আপনি যদি চাকরি পেতে চান, তাহলে চাকরি না পাওয়ার ৩টি কারণ আপনারা জানার পরে সেগুলো উন্নত করার জন্য কাজ করুন।

আশা করতেছি আপনি যদি ভালো কম্পিউটার দক্ষতা অর্জন করতে পারেন, এবং মানুষের সাথে সুন্দর ভাবে কথা বলতে পারেন। চাকরি পাওয়ার সঠিক সোর্সগুলো যদি ব্যবহার করতে পারেন, তাহলে খুব দ্রুত আপনি আপনার পছন্দের চাকরিতে জয়েন করার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই আপনি যদি চাকরি পেতে চান, তাহলে আমাদের দেওয়া ৩টি টিপস অনুসরণ করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Subscribe Today

GET EXCLUSIVE FULL ACCESS TO PREMIUM CONTENT

SUPPORT NONPROFIT JOURNALISM

EXPERT ANALYSIS OF AND EMERGING TRENDS IN CHILD WELFARE AND JUVENILE JUSTICE

TOPICAL VIDEO WEBINARS

Get unlimited access to our EXCLUSIVE Content and our archive of subscriber stories.

Exclusive content

Latest article

More article